শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ০৪:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
Logo নালমুখ বাজারে শেফা ডায়াগনস্টিক উদ্বোধন করলেন বিমান প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী। Logo চুনারুঘাটে বিএনপি নেতা মরহুম দিদার মিয়া স্বরনে শোক সভা। Logo শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে মাংস ব্যবসায়ীকে ৫হাজার টাকা জরিমানা Logo পেশাদার ভালো সাংবাদিক হওয়ার জন্য যা প্রয়োজন Logo সাপাহার মডেল প্রেসক্লাবের ৩য় বর্ষপূর্তি উদযাপন Logo অপহরণের পর মুক্তিপণ দাবি, র‌্যাব-৭ চট্রগ্রামের বিশেষ অভিযানে সাবেক চেয়ারম্যানসহ আটক( ৮) Logo গর্ভধরিনী মাকে শ্লীলতাহানীর হাত হতে বাঁচাতে গিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় মা ছেলে গুরুত্বর আহত Logo হেযবুত তওহীদের নারীদের উপর উগ্রবাদীদের হামলা বিক্ষুব্ধ নারীদের শ্লোগানে প্রকম্পিত জাতীয় প্রেসক্লাব Logo শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলার মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার Logo বগুড়া ধুনটে পৌর শ্রমিকলীগের কমিটি গঠন।।
বিজ্ঞাপন
আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ।  যোগাযোগঃ 01977306839

কৃষকদের জন্য দুঃখের সংবাদ,আবার বাড়ালো ইউরিয়া সারের দাম।

Reporter Name / ২২০ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২ আগস্ট, ২০২২, ১১:০১ পূর্বাহ্ণ

মো:সাব্বির হোসেন রনি।গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি।দেশে ইউরিয়া সারের দাম কেজিতে ৬ টাকা বাড়ানো হয়েছে। এতে কৃষক পর্যায়ে ১৬ টাকা থেকে বেড়ে হলো ২২ টাকা আর ডিলার পর্যায়ে সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ২০ টাকা নির্ধারণ করেছে সরকার।

গতকাল সোমবার (১ আগস্ট) কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে এ তথ্য জানিয়ে বলেছে, পুনর্নির্ধারিত এ মূল্য আজ থেকেই কার্যকর হবে।

দাম বাড়ানোর কারণ হিসেবে মন্ত্রণালয় বলছে, ইউরিয়া সারের ব্যবহার যৌক্তিক পর্যায়ে রাখতে এবং চলমান বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে আন্তর্জাতিক বাজারে সারের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশেও দাম বাড়ানো হয়েছে।

কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতিকেজি ইউরিয়া সারের বর্তমান দাম ৮১ টাকা। এর ফলে ৬ টাকা দাম বাড়ানোর পরও সরকারকে প্রতি কেজিতে ৫৯ টাকা ভর্তুকি দিতে হবে। ২০০৫-০৬ অর্থবছরে প্রতিকেজি ইউরিয়া সারের ভর্তুকি ছিল মাত্র ১৫ টাকা।

কৃষি মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, চাহিদার বিপরীতে দেশে সব রকমের সারের পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে। আমন মৌসুমে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত দেশে ইউরিয়া সারের চাহিদা ৬ লাখ ১৯ হাজার মেট্রিক টন, বিপরীতে বর্তমানে মজুত রয়েছে ৭ লাখ ২৭ হাজার মেট্রিক টন, যা প্রয়োজনের চেয়ে প্রায় ১ লাখ টন বেশি।

অন্যান্য সার যেমন টিএসপির আমন মৌসুমে চাহিদা ১ লাখ ১৯ হাজার টন, বিপরীতে মজুত ৩ লাখ ৯ হাজার টন, ডিএপির চাহিদা ২ লাখ ২৫ হাজার টন, বিপরীতে মজুত ৬ লাখ ৩৪ হাজার টন এবং এমওপির চাহিদা ১ লাখ ৩৭ হাজার টন, বিপরীতে মজুত রয়েছে ২ লাখ ১০ হাজার টন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design & Developed by : BD IT HOST